কুমিল্লায় পরকিয়ার টানে ভাশুর পুত্রের সাথে পালিয়েছে প্রবাসীর স্ত্রী

Posted on by

কুমিল্লা টিভি নিউজঃ কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার শুভপুর ইউনিয়নের ধলুয়া গ্রামের পল্লী চিকিৎসক মো.আব্দুল হকের মেয়ে আফরোজা বেগম পরকীয়া প্রেমের টানে ভাশুর পুত্র শাকিলের হাত ধরে সূদুর ওমানে পাড়ি দিয়েছেন।সে পাশ্ববর্তী নাঙ্গলকোট উপজেলার পেরিয়া ইউনিয়নের কৈয়া গ্রামের মাওলানা এনামুল হকের পুত্রবধু। তার স্বামীর নাম মাওলানা মাঈন উদ্দীন।

এ ঘটনায় বাহরাইন প্রবাসী মাওলানা মাঈন উদ্দীনের পিতা মাওলানা এনামুল হক বাদী হয়ে শাকিল ও আফরোজার বিরুদ্ধে গত শুক্রবার (২৮ সেপ্টেম্বর) নাঙ্গলকোট থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নারী ২ সন্তানের জননী আফরোজা গত বৃহস্পতিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) তার স্বামীর বড় ভাই আবুল বাশারের পুত্র ওমান প্রবাসী তাজুল ইসলাম শাকিলের সাথে ওমানে পাড়ি দিয়েছে।পরকীয়া প্রেমিক শাকিলও ৩ সন্তানের জনক বলে জানা গেছে। জানা যায়, মাঈন উদ্দীনেরর প্রবাসে থাকার সুযোগে তার বাতিজা একই বাড়ীর আবুল বাশারের পুত্র ওমান প্রবাসী তাজুল ইসলাম শাকিলের সাথে পরকিয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে আফরোজার।চলতি বছরে শাকিল তার পরিবারের লোকদের না জানিয়ে কুমিল্লায় এসে বাসা ভাড়া করে ১ মাস তার চাচী আফরোজার সাথে অবৈধভাবে বসবাস করে আসছিল।

ওই এক মাস আফরোজা স্বামী ও শ্বশুর পরিবারেরর লোকদেরকে জানায়, অসুস্থতার কারনে সে তার বাবার বাড়ী চৌদ্দগ্রামের ধলুয়াতে আছে। কুমিল্লায় চাচী-বাতিজা থাকাকালিন আফরোজার পাসপোর্ট বানিয়ে ফটোকপি নিয়ে ওমান চলে যায় শাকিল।ভুয়া কাবিন তৈরি করে পাসপোর্টে শাকিলের নাম অন্তর্ভুক্তও করে সে। পরে ভিসা প্রসেসিং করে গত ২৭ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার) তার চাচীকে ওমান নিয়ে যায় শাকিল।আফরোজার ছেলে ৬ষ্ট শ্রেণীতে ও মেয়ে ৪র্থ শ্রেণীতে পড়ে। শাকিলের বড় ছেলে দাখিল পরীক্ষার্থী, মেয়ে সপ্তম শ্রেণীতে ও অপর ছেলে প্রথম শ্রেণীতে পড়ে বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

More News from কুমিল্লা

More News

Developed by: TechLoge

x